সুস্থ থাকার ৫টি সহজ পরামর্শ!

সুস্থ থাকার ৫টি সহজ পরামর্শ!

স্বাস্থ

সুস্থ থাকা এটি টাকা পয়সা মতোই মহামূল্যবান তবে আমরা সেটা স্বাস্থ হারানোর পর বুঝি। আমরা কেবল তখনি স্বাস্থ নিয়ে ভাবি যেকোন স্বাস্থ হীনতায় ভুগী। শরীরে যখনি কোনও একটা সমস্যা দেখা দেয় তখনি ভাবি না এবার ঠিকঠাক মতো শরীরের যত্ন নিতে হবে।

তবে এই ভাবনা তা যদি শরীর খারাপ এর আগে ভাবতেন তাহলে হয়তো শরীর খারাপ এর কষ্টটা ভুগতে হয় না।
আপনি যতটা সময় আপনার মোবাইল বা অন্যান্য মাধ্যমে সময় নষ্ট করেন সাি সময়টা যদি আপনার স্বাস্থ্যের যত্ন নেবার পিছনে দিতে পারেন তাহলেই আপনার লাইফ কতটা বেটার হতে পারে সে বিষয়ে আপনার কোনও ধারণাই নাই।

তাই আজ আমি আপনাদের মাঝে ৫ টা সহজ উপায় বলে দিবো যা আপনি খুব সহজে মেনে চলতে পারবেন আর উপকারিতাও চোখে পরার মতো।

৫টি উপায় হলো:

১নং -বামপাস ফিরে ঘুমান

আমাদের পাকস্থলীর ঘটন অনুযায়ী ডানপাশ ফিরে ঘুমালে পাকরস গুলো পেট এর ভিতর বিভিন্ন ধরণের অসুবিধা সৃষ্ঠি করতে পারে।
যার কারণে -বদ হজম,রক্ত চলাচলে সমস্যা,হৃত্পিন্ডে প্রদাহ বিভিন্ন ধরণের সমস্যা হতে পারে। সে জন্য বাঁদিক ফিরে ঘুমালে পাকরস গুল সঠিক ভাবে কাজ করতে পারে যার কারণে বদ হজম ও অনন্যা সমস্যা হয় না।

২নং -পানি পান করা

বেস্ত সময় এর সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গিয়ে আমরা পানি খাবার কথা ভুলেই যাই,যখনআমাদের খুব বেশি তৃষ্ণা পায় আমরা কেবল তখনি পানি পান করি যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি স্বরূপ। তাই প্রতি দিন সুস্থ স্বাবাভিক থাকার জন্য প্রতিদিন তৃষ্ণা ছাড়াও পানি পান করা প্রয়োজন।
একজন সুস্থ মানুষ এর দৈনিক কম করে ২ লিটার পানি পান করা প্রয়োজন,তাতে কিডনি জনিত সমস্যা হয় না।

৩নং -হাটার অভ্যাস

আপনি প্রতি দিন কতটুকু হাটেন?বিশ্ব স্বাস্থ অধিদপ্তর এর পরামর্শ মতে,একজন সুস্থ মানুষ প্রতিদিন ৮০০০ স্টেপ হাটা প্রয়োজন।আপনি কত স্টেপ হাটেন ? জানি তার সঠিক উত্তর অনেকেই দিতে পারবেন না। তাই আমাদের প্রতিদিন হাটার অভ্যাস করতে হবে।
হাঁটার জন্য বিভিন্ন অজুহাত খুঁজে বের করুন,প্রয়োজন হলে লিফট এর পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করুন। হাঁটার ফলে শরীর এর কোষ সতেজ হয়।

৪নং -স্বাস্থ সম্মত খাবার

আমাদের শরীর এর যে কোনও রোগ এর গুঁড়া হলো পেট। যদি পেটকে সুস্থ রাখতে পারি তবে আমাদের শরীর ও সুস্থ থাকবে। পেট ঠিক রাখার জন্য ২টা কাজ যথাসম্ভব কম করার চেষ্টা করুন অথবা ছেড়ে দিন।

১- জাঙ্ক ফুড না খাওয়া
২-হজম শক্তি ভালো রাখা

প্রতিটা খাবার ৩২বার চিবিয়ে খান,তাতে করে আপনার ৫০ ভাগ খাবার মুখেই হজম হয়ে যাবে।৩২বার চিবিয়ে খেলে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন কোন খাবার আপনার পেটে বদহজম সৃস্টি করতে পারে।

৫নং -স্বাস্থকর পরিবেশ সৃস্টি করা

আপনি যে পরিবেশে চলবেন আপনি না চাইতেও সেই পরিবেশটা আপনার মাঝে ধারণ করবেন। তাই একটা স্বাস্থসম্মত পরিবেশ এর মাঝে নিজেকে মানিয়ে নিতে চেষ্টা করুন। সিগারেট,মদ ,কিংবা জাঙ্ক ফুড থেকে বিরত থাকুন। আপনার বন্ধুদের মধ্যে যাদের এমন অভ্যাস রয়েছে তাদের সঙ্গ ছেড়েদিন। প্রতি দিন সকাল সন্ধ্যা ব্যায়াম করুন। ব্যায়াম আমাদের শরীর ও মন ২টাই ভালো রাখে। তাই আপনার পাশের ৫ জন বন্ধুকেও এমন ভাবে বেঁচে নিন যারা স্বাস্থ সচেতন। মনে রাখবেন স্বাস্থই সকল সুখের মূল। স্বাস্থকর পরিবেশ সৃস্টি করুন সুস্বাস্থ জীবন উপভুক্ত করুন।

সুস্থ সুন্দর জীবন সবাই আশা করে। স্বাস্থই সকল সুখের মূল,স্বাস্থ ভালো হলে তবেই আপনার জীবন সুন্দর হবে,আজ আমরা যে সব বিষয় নিয়ে কথা বললাম সে গুলো মেনে চলি। আমার সুস্থ থাকা আমার হাতে।

Check Also

ফার্মাসিস্ট কোর্স করার নিয়ম

ফার্মাসিস্ট কোর্স করার নিয়ম

ফার্মাসিস্ট কোর্স করার নিয়ম

Leave a Reply

Your email address will not be published.