ওয়েব ব্রাউজারগুলো যেভাবে আয় করে| Achieve knowledge in 2021

ওয়েব ব্রাউজারগুলো যেভাবে আয় করে| Achieve knowledge in 2021

ইন্টারনেট ওয়েব ব্রাউজার :

ব্রাউজার ইন্টারনেটে ওয়েব ব্রাউজিং এর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস। বর্তমানে বিশ্বে প্রায় ৪.৬৬ বিলিয়ন অ্যাক্টিভ ইন্টারনেট ইউজারের পাশাপাশি ৪.৩২ বিলিয়ন অ্যাক্টিভ মোবাইল ইন্টারনেট ইউজার রয়েছে। এতো এতো সব ইউজারের মধ্যে Google Chrome, Microsoft Edge, Safari, Firefox, Opera ব্রাউজারগুলো সবচাইতে জনপ্রিয় ব্রাউজার।

তবে, Overall Market Share এর দিক থেকে ৬৪.৪৭% মার্কেট শেয়ার এর পাশাপাশি ৬৩.১৭% মোবাইল সেগমেন্ট ও ৬৭.৫৩% কম্পিউটার সেগমেন্ট মার্কেট শেয়ার নিয়ে গুগল ক্রম বিশ্বের সেরা ব্রাউজার। এছাড়া ১৮.৬৯ Overall Market Share অ্যাপলের Safari ব্রাউজার দ্বিতীয় নাম্বারে রয়েছে।

ব্রাউজার ইতিহাস নিয়ে বলতে গেলে প্রথমেই চলে আছে World Wide Web এর প্রতিষ্ঠাতা ব্রিটিশ সাইন্সটিস টিম বার্নারস লি এর কথা। ১৯৯১ সালে একই নামে প্রথম ওয়েব ব্রাউজার তৈরি করেন তিনি। যা দিয়ে ব্রাউজিং এর পাশাপাশি ওয়েব পেজ ও এডিট করা যেত। পরবর্তীতে কনফিউশন এড়াতে ওয়েব ব্রাউজারটির নাম World Wide Web থেকে Nexus রাখা হয়।

তবে, ব্রাউজারটিতে ব্রাউজ করা গেলেও কোন ইমেজ দেখা যেত না। ১৯৯৩ সালে মার্ক অন্দ্রেসেন University of Illinois এর National Center for Super Computing Application (NCSA) এর সহযোগিতায় Mosaic নামের একটি ব্রাউজার তৈরি করেন। এটাই বিশ্বের প্রথম ওয়েবসাইট যেটায় টেক্সটের পাশাপাশি ইমেজ ও দেখা যেত।

১৯৯৪ সালে মার্ক অন্দ্রেসেন Mosaic কে ছেড়ে দিয়ে Netscape Communications নামে একটি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেন। সেই বছরই Mosaic এর ভিত্তি করে তৎকালীন ইউরোপের ব্রাউজার Netscape Navigator বাজারে আছে। ভিজুয়াল ক্যাপিটালের তথ্য সুত্রে ১৯৯৫ সালের ব্রাউজারটি (Netscape Navigator) ৯০.০০% মার্কেট শেয়ার দখল করে নিতে সক্ষম হয়েছিল।

প্রথমদিকে Netscape Navigator ব্রাউজারটি নন কমার্শিয়াল ইউজারদের জন্য ফ্রীতে ব্যবহার করার সুযোগ থাকার কথা জানালেও, ৬ মার্চ ১৯৯৫ সাল থেকে শুধুমাত্র নন প্রফিট অরগ্যানিজেশন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বেতিত বাকি সকল ইউজারদের থেকে ব্রাউজারটি চার্জ করতে থাকে।

এদিকে ১৯৯৪ সালে Spyglass Inc. > Mosaic এর সোর্স কোর্ডের মাধ্যমে Spyglass Mosaic নামে আর একটি ব্রাউজার তৈরি করে। তবে এই ব্রাউজারটি ইউজারদের জন্য তৈরি না করে বিভিন্ন কোম্পানির কাছে বিক্রি করা হয়।

১৯৯৫ সালে মাইক্রোসফট ৮ মিলিয়ন ডলারে Spyglass Mosaic ব্রাউজারটি লাইসেন্স এর মাধ্যমে Internet Explorer ব্রাউজারটি তৈরি করে। Internet Explorer ব্রাউজারটি মাইক্রোসফট Windows 95 ভার্শন থেকে শুরু করে পরবর্তী সকল Windows ফ্রিতে শেয়ার করা হতো। এছাড়াও Apple এর সাথে একটি ডিলের কারণে তাদের ডিভাইসের ডিফল্ট ব্রাউজার হিসাবে Internet Explorer শিফট করা হত।

Internet Explorer ফ্রীতে Microsoft এর সকল ভার্শন দেওয়ার কারণে ১৯৯৯ সালের মধ্যে ৭৫%+ মার্কেট শেয়ারে চলে আছে। এদিকে Internet Explorer এর সামনে অনন্য সব ব্রাউজার মার্কেট শেয়ার থেকে হারাতে থাকায় ১৯৯৮ সালে Netscape Navigator কে ওপেন সোর্স করে দেওয়া হয়।

পাশাপাশি ২০০৩ সালে Microsoft ও Apple এর ডিল শেষ হয়ে গেলে Apple তাদের পার্সোনাল কম্পিউটারের জন্য ডিফল্ট ব্রাউজার Safari লঞ্চ করে যা বর্তমানে আইফোন ও আইপ্যাডে ও ব্যবহার করা হয়। ২০০৪ সালে AOL > Netscape Navigator কে কিনে নিলে এর ওপেন সোর্স সফটওয়্যারটিতে moz://a ক্রিয়েট করা হয়। যার প্রক্ষিতে ২০০৪ সালের নভেম্বর মাসে Mozilla Firefox লঞ্চ করা হয়। সে সময় Internet Explorer থেকে Mozilla Firefox ৯৪%+ মার্কেট শেয়ার দখল করতে সক্ষম হয়েছিল।

এছাড়া ১৯৯৬ সালে রিলিজ হওয়া Opera ব্রাউজারকে ২০০৫ সালে ফ্রি করে দেওয়া হয়। এই ব্রাউজার গুলো মূলত Improved Security & Speed দেওয়ার জন্য মার্কেটে খুব কম সময়ের মধ্যেই জায়গা করে নিয়েছিল। ২০০৮ সালে গুগল Isolated Tabs ও Fast Browsing ফিচার সহ তাদের নিজস্ব ওয়েবব্রাউজার Google Chrome বাজারে আনে। ব্রাউজারটি গুগলের ক্রোমিয়াম ওপেন সোর্স এর উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছিল।

ব্রাউজারটির মজার এবং এক্সসাইটিং ফিচার হল ব্রাউজারটির কোন একটি ট্যাব ক্রাশ করলেও বাকি ট্যাবগুলো ঠিকই কাজ করবে। ২০১৩ সাল নাগাদ Internet Explorer ও Mozilla Firefox কে পিছনে ফেলে Google Chrome সবচাইতে সেরা ওয়েবব্রাউজার হয়ে ওঠে। সে বছর Google Chrome ৩৪.৭% মার্কেট শেয়ার নিয়ে উপর পজিশনে ছিল যার বিপরীতে Internet Explorer ও Mozilla Firefox এর মার্কেট শেয়ার ছিল ২৩.৭৪% শতাংশ ও ১০.৯১% শতাংশ।

২০১৫ সালে মাইক্রোসফট তাদের নিজেদের http:// সোর্স ইঞ্জিন দিয়ে html ব্রাউজার Microsoft Edge তৈরি করে। এবার ২০১৯ সালে html ব্রাউজার Microsoft Edge ওপেন সোর্স Microsoft Chromium এর উপর ভিত্তি করে Microsoft Edge কে রিপিড করে এবং ধিরে ধিরে Internet Explorer রিপ্লেসের কাজ শুরু করে।

২০২১ সালের মে মাসে মাইক্রোসফট অফিসিয়ালি Internet Explorer সাপোর্ট বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দেয়। Statcounter এর তথ্য সুত্রে Google Chrome এর বর্তমান গ্লোবাল মার্কেট শেয়ারের পরিমাণ ৬৪.৪৭% শতাংশ। অন্যদিকে Safari, Firefox ও Microsoft Edge এর গ্লোবাল মার্কেট শেয়ারের পরিমাণ ১৮.৬৯%, ৩.৫৯% ও ৩.৩৯% শতাংশ।

এছাড়া মোবাইল ব্রাউজারের দিক থেকে ৬৩.১৭% শতাংশ মার্কেট শেয়ার নিয়ে Google Chrome সবার উপরে। অন্যদিকে ২৪.৪৩% ও ৬.০৪% শতাংশ মার্কেট শেয়ারে রয়েছে Safari ও Samsung Internet ব্রাউজার। এদিকে Google Chrome ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেমের জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে Microsoft Chromium এর পাশাপাশি Chrome OS ও ধিরে ধিরে জনপ্রিয়তা লাভ করছে। IDC এর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী ২০২০ সালে বিক্রিত ডিভাইস গুলোর মধ্যে Chrome OS > MacOS কে ছাড়িয়ে গেছে। সে বছর বিক্রিত ডিভাইস গুলোর মধ্যে গুগল ক্রমের মার্কেট শেয়ার ছিল ১০.৮% শতাংশ।

অ্যাপলিকেশন বা ব্রাউজার থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করে ?

ইন্টারনেটের শুরুর দিকে ব্রাউজারগুলো ব্যবহার করতে হলে অন্যান্য অ্যাপলিকেশন এর মতো কিনে নিতে হতো। অথচ বর্তমানে বিশ্বে এতো এতো ব্রাউজারের সবগুলোই ফ্রিতে ব্যবহার করা যাচ্ছে। কিন্তু প্রশ্ন হল, ফ্রিতে ব্যবহার করা যায় এমন একটি অ্যাপলিকেশন বা ব্রাউজার থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করে ?

ব্রাউজার রিভিনিউ জেনারেটের একটি মেইন রিসোর্স হল “Royalty”। মূলত ব্রাউজার ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসাবে সার্চ ইঞ্জিনগুলোর কোম্পানির সাথে চুক্তি করা থাকে, যা ব্রাউজারকে “Royalty” হিসাবে পে করা হয়। Investopedia এর একটি তথ্য সুত্রে ২০১৮ সালে Mozilla Firefox $451 মিলিয়ন রিভিনিউ জেনারেট করতে সক্ষম হয় এবং এর ৯৫ % শতাংশ আসে “Royalty” থেকে ।

এছাড়া ২০১৯ সালে Fortune এর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী গুগলকে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন করতে গুগলকে $12 বিলিয়ন ডলার পে করা হয়। এমনকি চায়না’র Baidu ও রাশিয়ার Yandex ব্রাউজার গুলোকে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিনের জন্য “Royalty” পে করা হয়। “Royalty” এর পাশাপাশি ব্রাউজারগুলো রিভিনিউ আনতে আরওএকটি সোর্স হচ্ছে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট রিভিনিউ।

যেমন Brave Browser একটি Basic Attention token renew program। এই প্রগ্রামের আওতায় Brave Browser ইউজারদের অ্যাড দেখার মাধ্যমে যেই রিভিনিউ জেনারেট করে তার ৭০% শতাংশ ইউজারদের সাথে শেয়ার করে এবং বাকি ৩০% শতাংশ নিজেরা রেখে দেয়।

ব্রাউজার গুলোর ইউজারের তথ্য, ব্রাউজিং এর হিস্টোরি ও লোকেশন সহ আরও বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে এবং স্টোর করে রাখে। এর বিনিময়ে বিভিন্ন কোম্পানি ব্রাউজার গুলোকে অর্থ দিয়ে থাকে। এসব তথ্যের মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন ও অ্যাড প্লাটফরমগুলো ইউজারদের পছন্দ অনুযায়ী অ্যাড দেখাতে পারে।

কিভাবে ব্রাউজারগুলো দিয়ে সার্চ ইঞ্জিন ও অ্যাড প্লাটফরমগুলোর থেকে আয় হয় ?

মডার্ন ব্রাউজারগুলো বেশিরভাগই এক্সটেনশনের মাধ্যমে এক্সট্রা ফিচার দেওয়ার সুবিধা দিয়ে থাকে। এসব এক্সটেনশনগুলো মূলত থার্ডপাটি ডেভেলপার রা তৈরি করে থাকে এবং ব্রাউজারগুলোর নিজস্ব মার্কেট প্লেসে আপলোড করে থাকে। এদের মধ্যে যেই সব এক্সটেনশনগুলো ইউজারদের চার্জ করে থাকে, ব্রাউজারগুলো এক্সটেনশনকে ইউজারদের চার্জ করার পেক্ষিতে ফি চার্জ করে থাকে।

এছাড়াও ব্রাউজারগুলো হোম পেজে বিভিন্ন কোম্পানির ওয়েবসাইটের লিঙ্ক বুকমার্ক করার মাধ্যমেও ব্রাউজারগুলো রিভিনিউ জেনারেট করে থাকে। যেমন Opera ব্রাউজারের হোম পেজে Booking.com ও eBay এর মতো বেশ কিছু কোম্পানির ওয়েবসাইট লিঙ্ক বুকমার্ক করার মাধ্যমে Opera ওইসব কোম্পানি থেকে রিভিনিউ জেনারেট করে থাকে। Opera এর মতো Edge, Firefox এবং অনন্য সকল ব্রাউজারগুলো লাইসেন্সিং এর মাধ্যমে ব্রাউজারগুলো কোম্পানি ও সার্ভিসগুলো থেকে আয় করে থাকে।

এছাড়াও Mozila Firefox ব্রাউজার ইউজারদের কাছ থেকে ডোনেশন কালেকশনের মাধ্যমে আয় কর থাকে। যদিও Mozila Firefox এর মূল রিভিনিউ খুব কম পরিমানেই আছে ডোনেশন কালেকশন থেকে। তবে তাদের অধিকাংশ রিভিনিউ “Royality” থেকে আছে। ওয়েবব্রাউজিং এর কোন বিকল্প নেই। কিন্তু প্রতিটি ব্রাউজারই তাদের ইউজারদের তথ্য সংগ্রহ করে সেগুলো অনন্য কোম্পানির কাছে বিক্রি করে দেয়।

তবে, বর্তমানে বেশকিছু ব্রাউজার তাদের ইউজারদের জন্য নিরাপত্তার দিকে নজর দিয়েছে এবং নিরাপত্তা সংক্রান্ত অনেক ফিচার আনছে। এমন কিছু ব্রাউজার বর্তমানে রয়েছে যেগুলো ইউজারদের তথ্যের নিরাপত্তায় রাখার ব্যবস্থা রেখেছে। তবে, এইসব ব্রাউজারগুলো ইউজার সংখ্যা অনেক কম। আরও পড়ুন

নিচে সকল ব্রাউজারের আপডেট ডাউনলোড লিংক দেওয়া হলো।

Google Chrome Update Download Link Below;

Google-Chrome-Update

Mozilla Firefox Update Download Link Below;

Firefox update Download

Update Opera Mini Download Link Below;

Opera Mini

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *